বাজেট রিপোর্টিং

বাজেট নিয়ে রিপোর্ট করবেন যারা , তাদের যেদিক গুলোতে নজর রাখা দরকার বলে মনে করছেন অর্থনীতিবিদ নাজনীন আহমেদ

এক. উন্নয়ন বাজেটে কোন প্রকল্প গুলো ইতোমধ্যে বরাদ্দ পেয়েছে সেটা জানার চেষ্টা করতে হবে।

দুই. স্বাস্থ্য খাতের বরাদ্দের খুঁটিনাটি যত বেশি সম্ভব পরিসংখ্যান সংগ্রহ করতে হবে। গত কয়েক বছরের রাজস্ব ও উন্নয়ন খাত থেকে স্বাস্থ্য বাজেট কত গেছে ,দেশে ডাক্তার হাসপাতাল ইত্যাদির সংখ্যা কত এ সংক্রান্ত যত তথ্য সংগ্রহ করা যায় তত ভালো। তাছাড়া প্রস্তাবিত বাজেটে স্বাস্থ্য খাতের কোন কোন প্রকল্প ইতোমধ্যে ঘোষিত হয়েছে সেটা দেখতে হবে।

তিন. কর্মসংস্থানের জন্য বাজেট কি করছে, এক্ষেত্রে নতুন ধরনের প্রকল্প নেয়া হয়েছে কিনা গত বছর 100 কোটি টাকার যে বরাদ্দ ছিল নতুন উদ্যোক্তাদের জন্য সেটার কি ব্যবহার হয়েছে জানলে ভাল হয়।

চার.সামাজিক সুরক্ষায় নতুন কি কি বরাদ্দ আসলো তার পরিসংখ্যান,

পাঁচ রাজস্ব আদায়ের সর্বশেষ পরিসংখ্যান আগামীর রাজস্ব আদায়ের সঙ্কট নিয়ে সম্প্রতি এনবিআরের সাবেক চেয়ারম্যান মোশারফ সাহেব তার ফেসবুকে লিখেছেন সেই সংক্রান্ত বিষয়গুলো আমলে নেয়া

ছয় কৃষি পণ্য সরবরাহের জন্য বাজেটে কিভাবে বরাদ্দ রাখা হচ্ছে তা দেখা দরকার

সাত. রাজস্ব আদায় কম হওয়ার সম্ভাবনা আর ব্যয়বৃদ্ধির সম্ভাবনার কারণে বাজেট ঘাটতি এবছর বাড়বে। সেটা মোকাবেলায় ব্যাংকের নিকট থেকে ঋণ, বৈদেশিক ঋণের বৃদ্ধি এই সংক্রান্ত পরিসংখ্যান ঐতো মধ্যে সরকার গৃহীত পদক্ষেপগুলো দেখা।

আট. সব রকমের প্রণোদনা প্যাকেজের একটা run-down লাগবে । বিভিন্ন খাতে ইতোমধ্যেই যে প্রণোদনা গুলো দেয়া হয়েছে সেগুলো।